এক সাক্ষাৎকারে সাংবাদিকদেরকে জানান, রুপালি পর্দায় জয়ের পুরস্কার

ছিলেন আইনের ছাত্রী, হয়ে গেলেন অভিনেত্রী। আদালতের বারান্দার চেয়ে সিনেমার সেট বেশি আকর্ষণ করেছে তাকে। তাতে মন্দ কী। স্টার জলসার সিরিয়াল দিয়ে শুরু; অতঃপর প্রথম চলচ্চিত্র ‘প্রজাপতি বিস্কুট’-এর ‘শাওন’ চরিত্র দিয়েই বাজিমাত। বোদ্ধাদের রায়ে পেলেন শ্রেষ্ঠ অভিনেতার (নারী) পুরস্কার। এরপর একে একে ‘সোয়েটার’ ছবির ‘টুকু‘গুপ্তধনের সন্ধানে’ ও ‘দুর্গেশগড়ের গুপ্তধন’এর ‘ঝিনুক। প্রত্যেকটি চরিত্রই যেন ইশার জন্য রূপালি এক পথ তৈরি করেছে।
এক সাক্ষাৎকারে সাংবাদিকদেরকে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*