রায়হান হত্যায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনার জন্য সরকার আন্তরিক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর।

রায়হান হত্যায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনার জন্য সরকার আন্তরিক। তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে পুলিশী নির্যাতনে নিহত রায়হানের পরিবারকে আশ্বাস দিয়েছেন সিলেট-০১ আসনের এমপি ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের দায়িত্বরত মন্ত্রী ড.আব্দুল মোমেন। ২০ অক্টোবর মঙ্গলবার রায়হানের পরিবারের সমবেদনা জানাতে গিয়ে এমনটাই জানান তিনি। তাছাড়া মোমেন ফাউন্ডেশন এর পক্ষ থেকে রায়হানের পরিবার কে দুই লক্ষ টাকা প্রদান করেন। তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাসের পরও আতংক উৎকন্ঠা কাটেনি রায়হান পরিবারের। নিহত রায়হান পরিবারের কেউই মোঠোফোনে কথা বলতে রহস্যজনক কারণে নারাজি প্রকাশ করে প্রয়োজনে মিডিয়া কর্মীদের সরাসরি গিয়ে কথা বলার অনুরোধ জানান। তবে স্থানীয়রা বলছে রায়হান সু-শৃঙ্খল ছেলে ছিল। রায়হান বখাটে বলে একটি মসজিদের ইমাম পরিবারের সাথে তার সমন্ধ হতোনা বলে জানান এলাকাবাসী ও স্বজনরা। এদিকে পুলিশী নির্যাতনে রায়হানের মৃত্যুর ঘটানার দিন ও রায়হান প্রতিদিনের মতো স্টেডিয়াম মার্কেটে সন্ধ্যাবদী কর্মরত ছিল বলে নিশ্চিত করেছেন শাহজালাল ল্যাবে কর্মরত সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হসপিটাল এর চিকিৎক ডাঃ শান্তারানী দত্ত। রায়হান হত্যার তথ্যে বাধাঁ রায়হান হ্ত্যা নিয়ে পুরোপুরি তথ্য দিতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তালবাহানা রেছে বলেও অভিযোগ রয়েছে মিডিয়া কর্মীদের। তাছাড়া স্থায়ীরা বলছেন রায়হান হত্যা মামলাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে তৎপর রয়েছে একটি মহল। পুলিশ ফাড়িঁতে বাধাঁঃ  এদিকে রায়হানের পরিবারের সাথে দেখা করে ঢাকা থেকে আসা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের কমকর্তা সাকিবুল হাসান myh  পুলিশ ফাঁড়িতে রায়হান এর নির্যাতনের স্থান আকবর টর্চার শেল দেখতে মঙ্গবার সন্ধ্যায় ফাড়িতে গেলে   বাধা দেয় একজন পুলিশ কনেস্টবল বলে নতুন স্যার এসেছেন ফাড়ির দায়িত্বে অনার অনুমোতি ছাড়া ফাড়ির বাহির এলাকা দেখা যাবে না ।  তবে দিনবর ফেইসবুকে আকবর গ্রেফতার বলে গুঞ্জন থাকলেও এখনো জনে মনে প্রশ্ন আসলে কি আইনের আওতায় আসবে রায়হানের খুনী আকবর না কি পিবিআই ও কাজ করবে আকবরকে বাচাঁতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*